Ad Space 100*120
Ad Space 100*120

কমলনগরে বিএনপির ইউনিয়ন কমিটি নিয়ে বিতর্ক


প্রকাশের সময় : ৭ মাস আগে
কমলনগরে বিএনপির ইউনিয়ন কমিটি নিয়ে বিতর্ক

প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার পাটরিরহাট ইউনিয়ন বিএনপির কমিটি নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছে এতে করে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে নেতাকর্মীদের মাঝে।বর্তমান কমিটির আহবায়ক আবদুর রাজ্জাকের বাড়ি হাজিরহাট ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডে। তিনি ভোটার অপর চরফলকন ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে। শিক্ষাগত যোগ্যতায় তিনি ৫ম শ্রেণি পাশ। তিনি বিএনপির আহবায়ক হয়েছেন পাটারিরহাট ইউনিয়নের। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কমিটি প্রকাশ হলে বিতর্ক শুরু হয়। এতে ওই ইউনিয়নের অধিকাংশ বিএনপির নেতাকর্মীদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে ।
জানা যায়, উপজেলা বিএনপির আহবায়ক গোলাম কাদের যুগ্ম আহবায়ক নুরুল হুদা চৌধুরী ও এম দিদার হোসেনের গত ২৯ আগস্টের স্বাক্ষরিত একটি কমিটি গত দুই তিন দিন থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার হয়। কমিটিতে আবদুর রাজ্জাক তালুকদারকে আহবায়ক এবং এড: সেলিমকে যুগ্ম আহবায়ক করে ৫৭ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়। ওই কমিটির আহবায়ক আবদর রাজ্জাক তালুকদার দীর্ঘদিন হাজিরহাট ইউনিয়নের ৪ ওয়ার্ডের নিজ বাড়িতে বসবাস করছেন। এবং তিনি ভোটার চরফলকন ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে। পাটারিরহাট ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক হওয়ার বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার হলে ওই কমিটির বিষয়ে ক্ষোভ ও তীব্র নিন্দা জানান পাটারিরহাট ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা।
ওই কমিটির এক নম্বর যুগ্ম আহবায়ক এড মো: সেলিম দাবি করছেন পাটারিরহাট ইউনিয়নের শিক্ষিত ও যোগ্যতা সম্পন্ন লোক থাকা স্বত্বেও অন্য ইউনিয়নের অযোগ্য লোক দিয়ে কমিটি দেওয়া হয়েছে। এতে নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। উপজেলা নেতাদের খামেখেয়ালীপনার কারণে তিনি এ কমিটিতে থাকতে চান না বলেও জানান।
এ বিষয়ে পাটারিরহাট ইউনিয়নের আহবায়ক আবদুর রাজ্জাক বলেন, নদী ভাঙনের পর আমি সাময়িক হাজিরহাট ইউনিয়নে বসবাস করছি। চরফলকন ইউনিয়ন থেকে ভোটার তালিকা সংশোধন করে পাটারিরহাট ইউনিয়নে স্থানান্তরের চেষ্টা চলছে।
কমলনগর উপজেলা বিএনপির আহবায়ক গোলাম কাদের জানান, পাটারিরহাট ইউনিয়নের বিএনপির যোগ্যতা সম্পন্ন অনেক লোকই ছিল কিন্তু সাবেক এমপি আশরাফ উদ্দিন নিজান সাহেবের পছন্দের কারণে এ কমিটি দিতে বাধ্য হয়েছি।