Ad Space 100*120
Ad Space 100*120

কুমিল্লা জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের হাট-বাজারে প্রচারণা


প্রকাশের সময় : ১ বছর আগে
কুমিল্লা জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের হাট-বাজারে প্রচারণা

চাকরি নিয়ে বিদেশগনেচ্ছু, বিদেশগামী এবং বিদেশ ফেরত কর্মীসহ জনসাধারণের মধ্যে নিরাপদ অভিবাসন বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে কুমিল্লা জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস আজ সোমবার (১৬ জানুয়ারী ২০২৩) জেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে প্রচারণা অভিযান পরিচালনা করে। কুমিল্লা জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের সহকারী পরিচালক দেবব্রত ঘোষ-এর নেতৃত্বে একটি টীম সকাল ৮টা থেকে সদর দক্ষিণ উপজেলার চৌয়ারা বাজার, সুয়াগাজী বাজার, চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মিয়া বাজার, হাড়িসদ্দার বাজার, আমানগন্ডা বাজার, চৌদ্দগ্রাম পৌর বাজার, খিরণশাল বাজার ও মুন্সীরহাট বাজারে উপস্থিত জনসাধারণের মাঝে মাইকিং-এর মাধ্যমে প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ করে এবং নিরাপদ অভিবাসন সম্পর্কিত লিফলেট, হ্যান্ডবিল, পোষ্টার বিতরণ করে। বৈদেশিক কর্মসংস্থানে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা আনয়নের লক্ষ্যে এবং প্রান্তিক পর্যায়ে জনগণের মাঝে নিরাপদ অভিবাসনের তথ্য পৌঁছে দিতে কুমিল্লা জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস ইউনিয়ন পর্যায় থেকে শুরু করে হাট-বাজার প্রচারণা অব্যাহত রেখেছে। কুমিল্লা জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের সহকারী পরিচালক দেবব্রত ঘোষ বলেন, সঠিক তথ্য না জানার কারনে গ্রাম অঞ্চল থেকে যত মানুষ বিদেশে কর্মসংস্থান লাভ করে তাদের অনেকেরই অন্যের দ্বারা প্রতারিত হবার ঝুঁকি থাকে। তাই সঠিক তথ্য, সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণে সাহায্য করে। তিনি অভিবাসী কর্মী এবং তাদের পরিবারের অধিকার সুরক্ষা ও কল্যাণ নিশ্চিতকরণে সরকারের নানামূখী উদ্যাগের কথা বলেন। তিনি বিদেশ যাওয়ার পূর্বে সবার প্রশিক্ষণ গ্রহণের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন। দেবব্রত ঘোষ বিস্তারিত তথ্যের জন্য তিনি www.probashi.gov.bd, www.bmet.gov.bd, www.wewb.gov.bd, www.bmet.comilla.gov.bd সাইটগুলো ভিজিট করার পরামর্শ দেন । বাজারভিত্তিক এ প্রচারণায় প্রায় ২৫০০ মানুষ অংশগ্রহন করে।প্রচারণায় আরও উপস্থিত ছিলেন অভিবাসী তথ্য কেন্দ্র বাংলাদেশের কাউন্সেলর গোলাম মোস্তফা, ইকবাল হোসেন এবং জনশক্তি জরিপ অফিসার তাজুল ইসলাম। ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থায়নে ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর মাইগ্রেশন পলিসি ডেভেলপমেন্ট (আইসিএমপিডি) পরিচালিত অভিবাসী তথ্য কেন্দ্র বাংলাদেশ (এমআরসি) এবং পালবিল প্রাইভেট পার্টনারশীপ ফর রিএন্টিগ্রেশন (PPPII) আওতায় এটি আয়োজন করা হয়।