Ad Space 100*120
Ad Space 100*120

নানার বাড়ী বেড়ানো হলো না লক্ষ্মীপুরের রায়পুরের সুমাইয়ার


প্রকাশের সময় : ১ বছর আগে
নানার বাড়ী বেড়ানো হলো না লক্ষ্মীপুরের রায়পুরের সুমাইয়ার

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: সকাল ১০টার সময় মায়ের সাথে নানার বাড়ী বেড়াতে আসে সুমাইয়া (২)। আবার দুপুরে বাবার কাছে চলে যাওয়ার কথা ছিলো তার। কিন্তু আর যাওয়া হলো না। মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারী) সকাল ১১ পরিবারের সকলের অগোচরে নানার বাড়ীর বসতঘরের সামনে পুকুরে ডুবে তার মৃত্যু হয়।
ঘটনটি ঘটেছে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে সোনাপুর ইউপির রাখালিয়া গ্রামের বকশী হাওলাদার বাড়ীতে। নিহত সুমাইয়া কাজিগো চৌরাস্তার কাজি বাড়ীর কৃষক মোঃ হারন ও গৃহিনী রোজিনা আক্তারের একমাত্র মেয়ে। এঘটনায় মা— কৃষক বাবা ও স্বজনদের কান্নায় বাতাস ভারি হয়ে উঠছে।
সকাল সাড়ে ১১টার সময় এপ্রতিবেদকের কাছে রায়পুর সরকারি হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার তন্ময় পাল এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।
নিহত সুমাইয়ার মামি নাসিমা জানান, সকাল ১০টার দিকে সে তার মায়ের সাথে নানা সত্তর হাওলাদারের বাড়ীতে বেড়াতে আসে সুমাইয়া। আবার বিকালে মায়ের সাথে বাবার বাড়ী চলে যাবে। তার নানি নেই। সকলে অগোচরে বাড়ীর উঠানে পুকুর পাড়ে খেলছিলো সুমাইয়া। এ সময় প‌রিবারের লোকজন বাড়ির পাশে পারিবারিক কাজে ব্যস্ত ছিলেন। ১৫ মিনিট পর পুকুর থেকে উদ্ধার করে রায়পুর সরকারি হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। দুপুরে জোহরের নামাজের পর গ্রামের বাড়ীতে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে সুমাইয়াকে।
রায়পুর থানার ওসি শিন বড়ুয়া জানান, পানিতে শিশুর মৃত্যুর ঘটনা কেউ জানায়নি। প‌রিবারের লোকজনের সাথে যোগাযোগ কর অপমৃত্যু মামলা করার ব্যবস্থা করা হবে।