Ad Space 100*120
Ad Space 100*120

ভাংগারী ব্যবসার আড়ালে এলাকার চুরির নেপথ্যে দেলোয়ার


প্রকাশের সময় : ৮ মাস আগে
ভাংগারী ব্যবসার আড়ালে এলাকার চুরির নেপথ্যে দেলোয়ার

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চর রমণী মোহন ইউনিয়নের উত্তর চর রমণী মোহন গ্রামে একে পর এর চুরির ঘটনায় এলাকায় তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। স্থানীয়দের অভিযোগ করাতির হাট বাজারে ভাঙ্গারী ব্যবসার আড়ালে চুরির ঘটনায় স্থানীয় খলিল সর্দারের পুত্র দেলোয়ার হোসেন (৩৮) জড়িত। তার সহযোগী হিসেবে স্থানীয় বাচ্চু ঢালী, নুর নবী, মো: মহিন কাজ করে।

চুরির ঘটনায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার না পাওয়ায় একের এক অপরাধ করে পার পেয়ে যাচ্ছেন জড়িতরা। স্থানীয়দের তোপের মুখে সহযোগী মহিন চুরির সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে বলেন, দেলোয়ার তাকে ও নুর নবীকে ২ হাজার বিনিময়ে ইব্রাহিম মাঝির বাড়ি থেকে চুরির করা ২ টি পাম্প মেশিন গাড়িতে তোলার জন্য তাদের নিয়োগ করেন।

মঙ্গলবার দুপুরে এলাকায় গিয়ে জানা যায়, উত্তর চরণী মোহন গ্রামের খলিল সর্দারের পুত্র দেলোয়ার হোসেন সম্প্রতি করাতির হাট বাজারে একটি দোকানঘর ভাড়া নিয়ে ভাঙ্গারী ব্যবসার শুরু করে। কিছু দিন পরে এলাকায় চুরির ঘটনায় সাথে জড়িত হয়ে পড়ে। গত রোববার রাতে আক্কেল আলী পুত্র ইব্রাহিম মাঝির বসতঘর থেকে ২ টি সেচ পাম্প মেশিন চুরি হয়ে যায়।

পরে দোলোয়ার কে ইব্রাহিমসহ স্থানীয় লোকজন ডেকে এনে চুরিকৃত মালামাল উদ্ধারসহ আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দিলে সোমবার গভীর রাতে ওই মালামাল গুলো গোপনে এনে খলিল সর্দারের বাড়ি রেখে চলে যায়। এর আগে একই এলাকার তোফাজ্জল হোসেন হাও: পাম্প মেশিন,জুলহাস খানের বাজারের দোকান থেকে সোলার ব্যাটারী, টিভি সেট, সাইজ উদ্দিনের বসতঘরের গ্যাসের চুলা,সৌর বিদ্যুতের ব্যাটারী,সিলিন্ডার, সিএনজি চালক মনির হোসেনের গাড়ি থেকে ব্যাটারী, মন্নান মাঝির সিএনজি থেকে ব্যাটারী, মুক্তার আকন্দ এর অটো রিক্সা থেকে ব্যাটারী নিতে না পেরে আগুন ধরিয়ে দেয়।

শিবলুর খামার থেকে পানির কল,বিদ্যুতের তার ও মাছ চুরি, মো: দেলোয়ার এর বসতঘর থেকে গ্যাসের চুলা,সিলিন্ডার ও সোলার ব্যাটারী, করাতির হাট বাজারের ব্যবসায়ী মো: বাচ্চু হাওলাদারের বিকাশ,মোবাইল রিচার্জ সীমসহ মোবাইল সেট নিয়ে যায়।

 

এ বিষয়ে স্থানীয় ইব্রাহিম মাঝি জানান আমার ২টি সেচ পাম্প মেশিন চুরি হলে আমি স্থানীয়দের নিয়ে দেলোয়ার জিজ্ঞাসাবাদ করি এবং এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থাসহ বিচার করানোর কথা বললে পরে গতকাল রাতে আমার বাড়িতে চুরির করা পাম্প গুলো ফেরত দিয়ে দেয়। তার সহযোগী মহিন ও ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। আমি প্রশাসনে কাছে এ ব্যাপারে বিচার দাবী করছি।

 

স্থানীয় ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য কামরুল সরকার জানান, এলাকায় বেশ কয়েকটি চুরির ঘটনায় আমি অবগত হয়েছি। স্থানীয়দের দাবী এসব চুরির সাথে দেলোয়ার জড়িত। এ বিষয়ে প্রশাসনের কাছে বসে আইনি ব্যবস্থা গ্রহন এবং ভুক্তভোগীদের মামলা করার জন্য পরামর্শ দিয়েছি। চর রমণী মোহন ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ ছৈয়াল জানান, উত্তর চর রমণী মোহন গ্রাম ও করাতির হাট বাজারের চুরির ঘটনায় কেউ আমার কাছে কোন অভিযোগ করেনি।

 

ইউপি সদস্য আমাকে বিষয়টি জানায়নি। অভিযোগ পেয়ে প্রশাসনের সহযোগীতায় চুরির বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ^াস দেন তিনি। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোসলেহ উদ্দিন জানান, চুরির ঘটনায় থাকার কোন অভিযোগ আসেনি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।