Ad Space 100*120
Ad Space 100*120

রামগতিতে আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে এতিমের সম্পত্তি দখলের অভিযোগ


প্রকাশের সময় : ২ years ago
রামগতিতে আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে এতিমের সম্পত্তি দখলের অভিযোগ

সারোয়ার হোসেন, রামগতি (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি:
লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার চরআলগী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহেদ আলী মনুর বিরুদ্ধে দুই এতিম নারীর সম্পত্তি দখল করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগ উঠেছে, মনু উপজেলার রামদয়াল বাজারের ওই এতিমদের জমিতে দোকানঘর নির্মাণ করে দীর্ঘদিন ধরে দখল করে রেখেছেন। স্থানীয় গণ্যমান্যদের মাধ্যমে বারবার চেষ্টা করেও ওই নারীরা জমিটি উদ্ধার করতে পারছেন না। উল্টো জমি উদ্ধারে গিয়ে মনুর যৌন হেনস্তার শিকার হতে হয়েছে। বৃহস্পতিবার রামগতি উপজেলা সাংবাদিক ইউনিটি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এসব অভিযোগ করেন উপজেলার চরআলগী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত খবিরুল ইসলাম চৌধুরীর দুই মেয়ে রোজিনা ইসলাম ও শাবানা ইসলাম।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ভুক্তভোগীরা জানান, উপজেলার চরআলগী ইউনিয়নের রামদায়াল বাজারে চরআলগী মৌজায় তাঁদের বাবা প্রয়াত ইউপি চেয়ারম্যানের তিন শতক জমি রয়েছে। বাবার মৃত্যুর পর জমিগুলো তাঁর স্ত্রী, চার ছেলে ও দুই মেয়ে রোজিনা ইসলাম ও শাবানা ইসলাম মালিক হন। যা বর্তমান হাল রিভিশন ১১২ নম্বর খতিয়ানে তাঁদের নামে রেকর্ড রয়েছে।
তাঁরা জানান, আওয়ামী লীগ নেতা মনু গত বছর তাঁদের ভাইদের কাছ থেকে অংশ কিনে নেওয়ার কথা বলে পুরো জমিতে দোকানঘর নির্মাণ করেন। বিষয়টি জানতে পেরে তাঁরা দু’বোন জমিটি উদ্ধারে বাজার কমিটিসহ স্থানীয় গণ্যমান্যদের শরণাপন্ন হন। একপর্যায়ে জমি পরিমাপ শেষে মনুর দোকানঘরের মধ্যে তাঁদের জমি থাকার বিষয়ে সত্যতা মিললে সবাই তাঁকে ওই জমি ছেড়ে দিতে বলেন। কিন্তু মনু তা না করে উল্টো তাঁদের দু’বোনের অন্যান্য সম্পত্তিও দখলে নিতে বিভিন্ন ধরনের ফন্দি করেছেন এবং তাঁদের সম্পত্তিগুলো মনু নামমাত্র মূল্যে কিনে নেওয়ার পায়তারা করছেন।
শাবানা ইসলাম জানান, গত জানুয়ারি মাসে ওই জমিটির দখল ছেড়ে দেওয়া সংক্রান্ত আলাপ রয়েছে এমন কথা বলে মনু তাঁকে নিজ বাসায় ডেকে নেন। কিন্তু বাসায় গিয়ে তিনি দেখেন মনু ছাড়া অন্য কেউ নেই। এ সময় মনু বাসার দরজা বন্ধ করে দিয়ে জমির দখল ছেড়ে দিতে শর্ত হিসেবে তাঁর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের প্রস্তাব দেন। এছাড়া বিভিন্ন অশ্লীল কথা বলে তাঁকে যৌন হেনস্তা করেন। একপর্যায়ে তিনি কৌশলে দরজা খুলে পালিয়ে আসেন। পরে বিষয়টি থানা-পুলিশ পর্যন্ত গড়ায়।
সংবাদ সম্মেলনে শাবানা ও রোজিনা আরও জানান, বাবা খবিরুল ইসলাম চৌধুরী ও মা মুরশিদা বেগম মৃত্যুর সময় বিপুল পরিমাণ সম্পদ রেখে যান। কিন্তু তাঁদের ভাইরা মনুর সঙ্গে আতাঁত করে বিভিন্ন কুটকৌশলের মাধ্যমে তাঁদেরকে কোনো সম্পদ ভোগ করতে দিচ্ছেন না। এ বিষয়ে তাঁরা কোনো পদক্ষেপ নিতে গেলে মনু ভাইদের পক্ষ হয়ে ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে অবৈধ হস্তক্ষেপ করছেন। যে কারণে, বাবার মৃত্যুর ৩২ বছর পরেও পৈত্রিক সম্পত্তি উদ্ধারে বিভিন্নজনের কাছে ধরনা দিলেও তাঁদের কোনো সুফল মিলছে না। এ সময় তাঁরা মনুর দখলে থাকা তাঁদের জমিটি উদ্ধারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ দাবি করেন।
সংবাদ সম্মেলনে রোজিনা ও শাবানা ছাড়াও রোজিনার স্বামী মো. গিয়াস উদ্দিন ও মেয়ে লাবন্য আক্তার উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে চরআলগী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহেদ আলী মনু জানান, পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া জমিতে তিনি ওই দোকানঘর নির্মাণ করেছেন। এতে শাবানাদের কোনো জমি নেই।
কিন্তু তাঁর দখলে জমি না থাকলেও জমি কিনে নিতে ওই দুই বোনকে টাকা দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া এবং শাবানাকে যৌন হেনস্তার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি তা কৌশলে এড়িয়ে যান।