Ad Space 100*120
Ad Space 100*120

লক্ষ্মীপুরে মেঘনায় অভিযানে ৪ কোটি টাকা জাল জব্দ ৪৯৭ টি অভিযানে ৭ লাখ টাকা জরিমানা আদায়


প্রকাশের সময় : ১০ মাস আগে
লক্ষ্মীপুরে মেঘনায় অভিযানে ৪ কোটি টাকা জাল জব্দ ৪৯৭ টি অভিযানে ৭ লাখ টাকা জরিমানা আদায়

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের মেঘনায় মার্চ—এপ্রিল ২ মাস ইলিশসহ সব ধরনের মাছ শিকার, পরিবহন, সংরক্ষণ, বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা ছিল। সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য মাছ শিকার করায় মৎস্য বিভাগ, প্রশাসন, কোষ্টগার্ড, নৌপুলিশের যৌথ সমন্বয়ে ২ মাসে ৪৯৭ টি অভিযানে ৪ কোটি টাকার কারেন্ট জাল আটক করা হয়।
জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম জানান রোববার সন্ধায় জানান, মার্চ এপ্রিল ২ মাস মেঘ মোট ৪৯৭ টি অভিযান ও ৭২ টি ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় ৮৫ লাখ ১০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও অন্যান্য ৯৫ লাখ মিটার জাল জব্দ করা হয়। এর মধ্যে আটককৃত কারেন্ট জালের বাজার মূল্য প্রায় ৪ কোটি ৫০ লাখ টাকা।
এ ছাড়া ৭ লাখ ৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে সরকারী কোষাগারে জমা দেওয়া হয়। অভিযানে ১৫২টি মামলা, ২৮৯ জন কে আসামী, ৮.৮৫ মে: টন জাটকা ইলিশ ও ৮.৮৬ মে: টন অন্যান্য মাছ জব্দ করা হয়। আইন অমান্য করায় ২০ জেলেকে বিভিন্ন কারাদন্ড প্রদান করা হয়। তিনি আরও বলেন জেলায় প্রায় ৫০ থেকে ৫৫ হাজার জেলে রয়েছে। এর মধ্যে নিবন্ধীত আছে ৪৬ হাজার জেলে।
এ বছর ২৮ হাজার ৩৪৪ জন জেলেকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়েছে। ১লা মে থেকে নদীতে মাছ ধরা শুরু হলেও আগামী আরো দু’ মাস চলবে জাটকা সংরক্ষণ অভিযান। এ সময় নদীতে জেলেদের ইলিশ ধরার উপযোগী জাল ব্যবহারের জন্য পরামর্শ দেন তিনি। এদিকে অভিযান সফল হওয়া এবার ইলিশের উৎপাদন ৩০ হাজার মেট্রিক টন ছাড়িয়ে যাওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা।
উল্লেখ যে, লক্ষ্মীপুরের রামগতি চর আলেকজান্ডার থেকে চাঁদপুরের ষাটনল পর্যন্ত মেঘনা নদীর একশ কিলোমিটার এলাকায় জাটকা সংরক্ষণের লক্ষ্যে মার্চ—এপ্রিল এ—দুই মাস সকল ধরনের মাছ ধরা নিষিদ্ধ ছিল। দীর্ঘ দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা সোমবার থেকে নদীতে পুরোদমে মাছ শিকারে নামবে লক্ষ্মীপুরের জেলেরা। এতে প্রাণচা ল্য ফিরে এসে জেলে পরিবার ও মৎস্য ব্যবসায়ীদের মাঝে।