Ad Space 100*120
Ad Space 100*120

লক্ষ্মীপুর সম্পত্তি থেকে উচ্ছেদ কে কেন্দ্র করে পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন


প্রকাশের সময় : ৮ মাস আগে
লক্ষ্মীপুর সম্পত্তি থেকে উচ্ছেদ কে কেন্দ্র করে পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরে ৭৬ শতাংশ ভূমি থেকে বসবাসরতদের উচ্ছেদ কেন্দ্র করে পাল্টা পাল্টি সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্মেলনে উভয় পক্ষ বিরোধকৃত সম্পত্তি তাদের বলে দাবী করেছে।
৩১ জুলাই (রোববার) সকালে লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে পরিষদের প্রশাসক বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: শাহজাহান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কুল প্রদীপ চাকমা জানান, পৌর শহরের ৬৩ নং বা ানগর মৌজার ৭৬ শতাংশ জমি জেলা পরিষদের। ওই সম্পত্তিতে টিনের বেড়া ও ঘর রয়েছে।
পরিষদের টিনশেড ঘর এবং ইজারদার দোকান ঘরের চাল ও বেড়ার টিন মেরামত কাজ শুরু করলে গত শুক্রবার সকালে স্থানীয় মো: রাসেল, মো; সোহেল, নুরুল ইসলাম, সবুজ, রুবেল, নাছির, স্বপন চন্দ্র ও সাদনানসহ ৩০/৪০ জন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে পরিষদের স্টাফ ও ইজারাদারদের উপর হামলা চালিয়ে এসময় সাবেক সদস্য মাহবুবসহ ৫-৬ জন আহত হয়। এ ঘটনায় সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। কিন্তু বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জেলা পরিষদ সম্পর্কে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে বলে দাবী করেন তারা।
এ দিকে শনিবার দুপুরে প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ৮০ বছর ভোগদখলীয় জমি ব্যক্তি মালিকানা থেকে লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদ জোরপূর্বক উচ্ছেদের প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগী পরিবার। ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও সেচ্ছাসেবকলীগ নেতাদের ভাড়া করে নিরীহদের উচ্ছেদের চেষ্টার করার তীব্র নিন্দা জানান তারা।
লিখিত বক্তব্যে নাছির আহাম্মদ, আরতি রানি পাল, স্বপন চন্দ্র নাথ, ইমরান মাহমুদ সবুজ জানান ১৯৪২ সনে তৎকালীন ডিস্ট্রিক্ট বোর্ড থেকে ছাপ কবলা মূলে ৭৬ শতাংশ জমি ক্রয় করে। দীর্ঘ ৮০ বছর ভোগ দখলে আছে তারা নিয়মিত খাজনা পরিশোধ ও মালিকানা রেকর্ড রয়েছে।
ঘটনার দিন শুক্রবার সকালে কোন রকম নোটিশ ঘোষণা ছাড়াই ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও সেচ্ছাসেবকলীগ সহ ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে ভুক্তভোগীদের দোকান ঘর হামলা ও ভাংচুর করে বাঁশ কাঠ দিয়ে দখলের চেষ্টা করে জেলা পরিষদ। পরে স্থানীয়রা ৯৯৯ ফোন করলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।
দখলে বাধা দিলে যুবলীগ নেতা নজরুল ইসলাম ভুলু, মাহাবুবুর রহমান মাহমুব, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা চৌধুরী মাহামুন্নবী সোহেল, জেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি বেলায়েত হোসেন বেলাল, সাধারণ সম্পাদক মাহবুব ইমতিয়াজ এর উপস্থিতিতে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা তাদের উপর হামলা চালায়। এতে তাদের বেশ কয়েকজন নারী পুরুষ আহত হয়। এ ঘটনায় তারা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।