Ad Space 100*120
Ad Space 100*120

যুমনা বাসে চাঁদাবাজি, তিনদিন বাস চলাচল বন্ধ


প্রকাশের সময় : ২ মাস আগে
যুমনা বাসে চাঁদাবাজি, তিনদিন বাস চলাচল বন্ধ

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরে পরিবহন মালিকদের দ্বন্দ্বের জের ধরে গত তিন দিন ধরে বাস চলাচল বন্ধ রেখেছে যমুনা পরিবহন। এতে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে লক্ষ্মীপুর—ফেনী রুটের যাত্রীদের। এর মধ্যে অনেকেই প্রতিদিন সকালে লক্ষ্মীপুর থেকে ফেনী গিয়ে কাজে যোগ দিতে লোকাল বাসে যাতায়াত করে দূর্ভোগের শিকার হচ্ছেন বলে জানা গেছে।
বুধবার দুপুরে লক্ষ্মীপুর টু ফেনী রুটে চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতে লক্ষ্মীপুর বাসটার্মিনাল ও প্রেসক্লাবের সামনে পৃথক আয়োজনে পাল্টাপাল্টি মানববন্ধন করেছে বাস মালিক ও পরিবহন শ্রমিকরা।

পরিবহন মালিক সূত্রে জানা গেছে, বাসে চাঁদা আদায় করা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগ নেতা রাকিব পাটওয়ারী ও যমুনা হাই ডিউলাক্সের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মিলনের মধ্যে বিরোধ চলছে। এর জের ধরে লক্ষ্মীপুর—ফেনী রুটের যমুনা হাই ডিউলাক্স পরিবহণের একটি বাস চালকের সহযোগী খোরশেদ আলমকে মারধর করে দূর্বৃত্তরা। এ ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বাস বন্ধ রেখে লক্ষ্মীপুর টার্মিনালে মানববন্ধন করে মালিক ও শ্রমিকরা। মানববন্ধনে বক্তারা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম রকি ও তার ভাই আওয়ামী লীগ নেতা রাকিব পাটওয়ারী পরিবহণ মালিকদের কাছে চাঁদা দাবি করে আসছেন বলে অভিযোগ করেন। এসময় বক্তব্য রাখেন, যমুনা বাসের মালিক হাবিবুর রহমান, চালক জাবেদ পাঠান, বেল্লাল হোসেন, শ্রমিক নেতা রাজীব আহমেদ, শাকিল আহমেদ, বাস চালকের সহযোগী মোরশেদ আলম প্রমুখ।

এদিকে লক্ষ্মীপুর প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন বক্তারা বলেন, লক্ষ্মীপুর টু ফেনী রুটে বাস চালানোর জন্য কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না দিলে এ রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দেয় তারা। আমরা প্রশাসনের কাছে এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করি এবং নির্বিগ্নে যাতে এ রুটে যাত্রী সেবা দিতে পারি সে দাবী করেন তারা । মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, যমুনা বাসের মালিক হাবীবুর রহমান, ড্রাইভার জাবেদ পাঠান, শ্রমিক নেতা রাজীব আহমেদ, শাকিল আহমেদ প্রমুখ।

যমুনা হাই ডিউলাক্সের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মিলন জানিয়েছেন, লক্ষ্মীপুর—ফেনী রুটে যমুনার ৫২টি বাস রয়েছে। ১৫ বছর এ রুটে তারা পরিবহণ ব্যবসা করছেন। কখনো কাউকে চাঁদা দিতে হয়নি। ছাত্রলীগ নেতা রকি হঠাৎ করে প্রতিনিধির মাধ্যমে তার কাছ থেকে মাসিক ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এতে অস্বীকৃতি জানালে ছাত্রলীগ নেতা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। পরে রকি ও তার ভাই আওয়ামী লীগ নেতা রাকিব পাটওয়ারী ২ লাখ টাকা করে চাঁদা দাবি করে। কোনভাবেই রাজি না হওয়ায় গত ৪ মাস ধরে তারা সমস্যা সৃষ্টি করে আসছে। ৪ ফেব্রুয়ারি বাস টার্মিনালের কাউন্টারে তালা দিয়ে দিয়েছে। গত তিনদিন ধরে প্রতিটি কাউন্টারের সামনে লোক দিয়ে বাসে যাত্রী উঠাতে দিচ্ছে না। মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুর আড়াটার দিকে জকসিন বাজার এলাকায় বাসে উঠে ৮—১০ জন চালক ও তার সহযোগীকে বিভিন্ন ধরণের হুমকি দেয়। পরে চন্দ্রগঞ্জ বাজার এলাকায় গেলে তারা চালকের সহযোগীকেও মারধর করে। এ ঘটনায় তারা স্থানীয় পুলিশ হেডকোয়ার্টারে লিখিত অভিযোগ পাঠিয়েছেন বলে জানান তিনি।
ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম রকি বলেন, যমুনা পরিবহণে আমাদের মালিকানাধীন তিনটি বাস রয়েছে। প্রতিদিন প্রতিবাস থেকে ৬০০ টাকা করে নেয় যমুনা হাই ডিউলাক্স বাস পরিবহণ কর্তৃপক্ষ। ওই টাকা না নেওয়ার জন্য বলায় চেয়ারম্যানসহ কর্তৃপক্ষ আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তুলেছে। পরিবহণটির চেয়ারম্যানের কাছ থেকে চাঁদা চাওয়ার অভিযোগ মিথ্যে। বাস চালকের সহযোগীকে কে বা কারা মারধর করেছে তা আমরা জানি না। ৬০০ টাকা চাঁদা নেওয়ার প্রতিবাদে বুধবার দুপুরে বাস মালিক—শ্রমিকদের একাংশ লক্ষ্মীপুর প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছে।
লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার মোঃ মাহফুজ্জামান আশরাফ বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। এ বিষয়ে উভয়পক্ষের সঙ্গে কথা বলা হবে। জনদূর্ভোগ এড়াতে দ্রুতই বাস চালুর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।